romantic love kobita bangla

romantic love kobita Bangla


romantic love kobita bangla

খুলে দিয়ে মনের দখিণা দ্বার

 শুল্কসন্ধ্যা চৈত্রমাসে,

 মধুমাসের মধু মিলনে বাসন্তীরং এ

 কবির মনে প্রেম আসে।


 একলা দাঁড়ায়ে বকুল তলায়

 বাতাসে উড়িয়ে লাল শাড়ি,

 প্রভাতী মেঘে ফের বায়না ধরে

 মেয়ে তোমার কোথায় বাড়ি।


 জানতে চাইলে সবুজ বন

 বলবে তখন কবির মন

 ভালবাসি রাশি রাশি

 মেয়ের রেশম কালো চুল,

 তখন সবুজের বন দিবে উপমা

 ভালবাসায় নেই কো ভুল।


 সোনায় সোহাগা মেয়ের রূপ

 কাজল বরণ আঁখি,

 সুরের দানে মান অভিমানে

 তুমি যে আমার পাখি।


 হাজার বছরের স্বর্ণালী প্রেম

 কাচের চুড়ি যেচে,

 প্রেমিক পুরুষ তা আনিতো কিনে

 প্রেমিকা নিতো নেচে।


 তেমনি হওয়া চাই মেয়ের প্রেম

 জড়িয়ে কবির কোল,

 তখন আহ্লাদে প্রাণ ধরিবে যে গান

 ভালবাসার নেই কো ভুল।


ভালোবাসা-

 গায় সাম্যের গান

 সুর মাধুর্য ভাঙে শৃঙ্খল।


 ভালোবাসা-

 ভাসে মুক্ত ভেলায়

 পালতোলা নাওয়ে উজান বেলায়।


 ভালোবাসার-

 নাই কূল প্রান্তর-

 নাই তল, নাই সমতল।


 ভালোবাসা-

 তো জীবন্ত সজীব

 ভয় বাঁধা জ্বলন্ত প্রদীপ।


 ভালোবাসা-

 বলে হতে আমর

 বিলিয়ে দিতে যা সুন্দর।


 ভালোবাসা-

 এক অম্লান আশা

 অনন্ত অক্ষর যার ভাষা।


 ভালোবাসা-

 নয় পাবার আশা

 যা সুন্দর অন্তরে মাখা।


 ভালোবাসা-

 মানে অকৃত্রিম শ্রদ্ধা

 মনের মধ্যে স্পষ্ট ব্যক্ত।


 ভালোবাসা-

 মানে পবিত্র আত্মা

 অসীমের মাঝে শৃঙ্খল সত্তা।


 ভালোবাসা-

 হয় তরল পাতলা

 প্রয়োজনে সে কঠিন অখণ্ড।


 ভালোবাসা-

 হয় শান্ত প্রকৃতিৱচারি ধার উজ্জ্বল অতি।


 ভালোবাসা-

 হয় স্বার্থ ত্যাগী

 অন্যের মঙ্গল প্রথম দাবি।


 ভালোবাসা

 মানুষের অন্তরে ধ্বনি

 যার ব্যাপ্তি অনন্ত কাহিনী।


 ভালোবাসা-

 তো উন্নত অতি-

 কঠোর মানে মোমের বাতি।


 ভালোবাসা-

 তো অনন্য উপলব্ধি

 অসীম জ্ঞানের সূক্ষ্ম উক্তি।


 ভালোবাসা-

 জানে জীবনের মানে

 আনন্দ দুঃখের ক্ষণে-ক্ষণে


 ভালোবাসা-

 জানে মুক্ত হতে ভালোবেসে ধরণী ভরিয়ে দিতে।


 ভালোবাসা-

 বলে মরু প্রান্তরে

 তপ্ত রোদে দৃপ্ত পদে।


 ভালোবাসা

 উড়ে মুক্ত মনে

 দ্বিধাহীন কোন অন্ত প্রাণে।


 ভালোবাসা-

 আসে স্বর্গ হতে

 মহৎ সে জানান দিতে


বলতে পারো?

 কোন মেঘেতে ‘বৃষ্টি’ হাসে

 কোন মেঘেতে সূর্য,

 কোন মেঘেতে ‘ঝিরি হাওয়া’ 

 কোন মেঘেতে বজ্র।


 কোন গগনে তারার মেলা

 ‘শুকতারা’ ‘অরূন্ধতী’, 

 কোন্ আকাশে ‘পূর্ণিমা’ চাঁদ

 নিশীথ প্রদীপ বাতি।


 কোন হাওয়াতে ভেসে বেড়ায়

 মিষ্টি-মধুর শব্দ,

 কোন দিঘীটার শীতল জলে

 ফোটে আমার ‘পদ্ম’।


 কোন বাগিচায় নীল ভোমরা

 গুন গুন গান গায়,

 কোন বাতাসে জংলী ফুলের

 সুবাস পাওয়া যায়।


 কোন্ সুর’টি মন ছুঁয়ে যায়

 নিত্য আমার সাথী,

 কোন শাখাতে দোল খেয়ে যায়

 হলদে ‘সোনাপাখী’।


 কোন বনে’তে পেখম মেলে

 নাচে ‘ময়ূরী’, 

 কোন মনে’রি ‘কৃষ্ণ – রাধা’ য়

 হয়না ছাড়াছাড়ি।


 পারলে না ভাই পারলেনা তো

 এমন সহজ ধাঁধাঁ,

 আজ তাহলে বলবো না আর

 থাক সে বুকেই বাঁধা।


আমি আছি ততোদিন

 তুমি রবে যতদিন

 স্বপ্ন যাবে তত দূর

 তুমি নিবে যতদূর।


 প্রিয়তমা ও প্রিয়তমা

 আমায় ছেড়ে যেও না

 বৃথা কষ্ট দিও না

 স্বপ্নটা ভাঙিও না।


 আমি যখন ঘুমিয়ে থাকি

 স্বপ্নে শুধু তোমায় দেখি

 আমি যখন জেগে থাকি

 কল্পনাতে তোমায় খুজি।


 দূরে তাই যেও না

 দূরত্ব বাড়িয়ে

 আমাকে ছাড়িয়ে

 আমারই জীবন থেকে

 স্বপ্নগুলো রেখে।


 স্বপ্নগুলো স্বপ্নই রবে নাকি আমার জীবনে

 তা সত্যি হবে


তোমায় নিয়ে জল্পনা কল্পনা

 ভালবাসি তোমায় অল্পনা (কম নয়)

 করকি আমার সাথে ছলনা

 হে ললনা বলনা

 তোমায় কি ভালবাসবো না?

 ধোঁকা দিবে কিনা জানিনা ।


 ভালবাসার দিও প্রতিদান

 করনা কখনো অভিমান,

 ভালবাসা নয় কোন খেলা

 করবে যে তুমি হেলা

 ভালবাসি তোমায় দিয়ে মন

 রেখ প্রিয়া ভালবাসার মান।।


একদিন শান্ত সকালে

 স্কুলের কোলাহলে

 নিতান্তই খেলাচ্ছলে

 দিয়েছিলো সে প্রস্তাব

 অবাক নয়নে চেয়ে থাকলাম

 ক্রোধে ফেটে পড়লাম

 নিজেকে বললাম


 আমি কি প্রেমে পড়লাম

 অবশেষে বুঝলাম

 মনে মনে হাসলাম

 নিজেকে বোঝালাম

 তারই মাঝে হারালাম

 আজ আমি চেয়ে থাকি

 মনে মনে শুধু ভাবি

 সে আবার আসবে নাকি

 বলতে আমায় ভালোবাসি ।


Next Page

50% LikesVS
50% Dislikes