bangla premer kobita

Bangla Premer kobita


bangla premer kobita, rabindranath,valobashar romantic kobita bangla,bhalobasar kobita,শ্রেষ্ঠ প্রেমের কবিতা,রোমান্টিক প্রেমের কবিতা,সকালের প্রেমের কবিতা,প্রথম প্রেমের কবিতা,বাংলা প্রেমের কবিতা,রোমান্টিক কবিতা সমগ্র,আধুনিক প্রেমের কবিতা,সেরা প্রেমের কবিতা,


প্রেমহীন – সুনীল গঙ্গোপাধ্যায়


প্রেমহীন – সুনীল গঙ্গোপাধ্যায়  শেষ ভালোবাসা দিয়েছি তোমার পূর্বের মহিলাকে 

 এখন হৃদয় শূন্য, যেমন রাত্রি রাজপথ

 ঝকমক করে কঠিন সড়ক, আলোয় সাজানো, প্রত্যেক বাঁকে বাঁকে

 প্রতীক্ষা আছে আঁধারে লুকানো তবু জানি চিরদিন

 এ-পথ্ থাকবে এমনি সাজানো, কেউ আসবে না, জনহীন, প্রেমহীন

 শেষ ভালোবাসা দিয়েছি তোমার পূর্বের মহিলাকে!

 রূপ দেখে ভুলি কী রূপের বান, তোমার রূপের তুলনা

 কে দেবে? এমন মূঢ় নেই কেউ, চক্ষু ফেরায়, চক্ষু ফেরাও

 চোখে চোখে যদি বিদ্যুৎ জ্বলে কে বাঁচাবে তবে? এ হেন সাহস

 নেই যে বলবো: যাও ফিরে যাও

 প্রেমহীন আমি যাও ফিরে যাও

 বটের ভীষণ শিকড়ের মতো শরীরের রস

 নিতে লোভ হয়, শরীরে অমন সুষমা খুলো না

 চক্ষু ফেরাও, চক্ষু ফেরাও!

 টেবিলের পাশে হাত রেখে ঝুঁকে দাঁড়ালে তোমার

 বুক দেখা যায়, বুকের মধ্যে বাসনার মতো

 রৌদ্যের আভা, বুক জুড়ে শুধু ফুলসম্ভার,-

 কপালের নিচে আমার দুচোখে রক্তের ক্ষত

 রক্ত ছেটানো ফুল নিয়ে তুমি কোন্ দেবতার

 পূজায় বসবে? চক্ষু ফেরাও, চক্ষু ফেরাও, শত্রু তোমার

 সামনে দাঁড়িয়ে, ভূরু জল্লাদ, চক্ষু ফেরাও!

 তোমার ও রূপ মূর্ছিত করে আমার বাসনা, তবু প্রেমহীন

 মায়ায় তোমায় কাননের মতো সাজাবার সাধ, তবু প্রেমহীন

 চোখে ও শরীরে এঁকে দিতে চাই নদী মেঘ বন, তবু প্রেমহীন

 এক জীবনের ভালোবাসা আমি হারিয়ে ফেলেছি খুব অবেলায়

 এখন হৃদয় শূন্য, যেমন রাত্রির রাজপথ।।


  হিমযুগ – সুনীল গঙ্গোপাধ্যায়


 হিমযুগ – সুনীল গঙ্গোপাধ্যায়  শরীরের যুদ্ধ থেকে বহুদূর চলে গিয়ে ফিরে আসি শরীরের কাছে 

 কথা দিয়েছিলে তুমি উদাসীন সঙ্গম শেখাবে-

 শিশিরে ধুয়েছো বুক, কোমল জ্যোঃস্নার মতো যোনি

 মধুকূপী ঘাসের মতন রোম, কিছুটা খয়েরি

 কথা দিয়েছিলে তুমি উদাসীন সঙ্গম শেখাবে-

 আমার নিশ্বাস পড়ে দ্রুত, বড়ো ঘাম হয়, মুখে আসে সতি

 কথা দিয়েছিলে তুমি উদাসীন সঙ্গম শেখাবে।

 নয় ক্রুদ্ধ যুদ্ধ, ঠোঁটে রক্ত, জঙ্ঘার উত্থান, নয় ভালোবাসা

 ভালোবাসা চলে যায় একমাস সতোরো দিন পরে

 অথবা বৎসর কাটে, যুগ, তবু সভ্যতা রয়েছে আজও তেমনি বর্বর

 তুমি হও নদীর গর্ভের মতো, গভীরতা, ঠান্ডা, দেবদূতী

 কথা দিয়েছিলে তুমি উদাসীন সঙ্গম শেখাবে।

 মৃত শহরের পাশে জেগে উঠে দেখি আমার প্লেগ, পরমাণু কিছু নয়,

 স্বপ্ন অপছন্দ হলে পুনরায় দেখাবার নিয়ম হয়েছে

 মানুষ গিয়েছে মরে, মানুষ রয়েছে আজও বেঁচে

 ভুল স্বপ্নে, শিশিরে ধুয়েছো বুক, কোমল জ্যোৎস্নার মতো যোনী

 তুমি কথা দিয়েছিলে…..

 এবার তোমার কাছে হয়েছি নিঃশেষে নতজানু

 কথা রাখো! নয় রক্তে অশ্বখুর, স্তনে দাঁত, বাঘের আঁচড় কিংবা

 ঊরুর শীৎকার

 মোহমুগ্ধরের মতো পাছা আর দুলিও না, তুমি হৃদয় ও শরীরে ভাষ্য

 নও, বেশ্যা নও, তুমি শেষবার

 পৃথিবীর মুক্তি চেয়েছিলে, মুক্তি, হিমযুগ, কথা দিয়েছিলে তুমি

 উদাসীন সঙ্গম শেখাবে।।


munjatপ্রিয় পাঠকগণ। আশাকরি আজকের কবিতা গুলি আপনাদের ভালো লেগেছে।  তাই আপনাদের কাছে আমার বিশেষ অনুরোধ। পেজটাকে একটা লাইক অবশ্যই দিবেন। তার সাথে পাতাটাকে  বন্ধুদের সাথে শেয়ার অবশ্যই করবেন  ভালো  থাকবেন সুস্থে থাকবেন। এবং সবাইকে ভালো রাখবেন। ধন্যবাদ।


NEXT PAGE


 

50% LikesVS
50% Dislikes