bangla kobita abritti love

Bangla kobita abritti love


bangla kobita abritti love

কিন্তু সেই সৌভাগ্য আমার হলো না

 আমি যেদিন তোমার দেখতে গিয়েছিলাম

 সেদিন যে ছিল অমাবশ্যার রাত

 আর তাইতো সেদিন তুমি ছিলেনা

 ছিল আঁধারে ঘেরা এই আকাশ। 

 

 তবে আজ দেখতে পারিনা

 কাল দেখবো,

 তবুও চাঁদ আমি তোমায় দেখবো।

 তোমাকে বলবো মনের না বলা কিছু কথা।

ওরা যেন ঊষার আলো

 ভোর সকালে দেখা মিলে

 ঘন্টা দুয়েক পরেই উধাও।

 

 ওরা যেন মানব ছায়া

 রোদলা দুপরে দেখা মিলে

 সন্ধা ঘনিয়ে এলেই উধাও। 

 

 ওরা যেন মেঘের আড়ালে

 ঢাকা পড়া চাঁদ

 কখনো কখনো উঁকি দেয়

 ক্ষানিক বাদেই উধাও।

 

 ওরা যেন অদৃশ্য মানাবী

 ওদের দেখা যায় না,

 মিশে থাকে স্মৃতির পাতায়

 আর মাঝে মাঝেই কাঁদায়।

 

 ওরা যেন কাল বৈশাখী ঝড়

 চৈতের শেষই এসেই

 সব কিছু তছনছ করে দিয়ে যায়।

 

সেদিন প্রভাত ফেরীতে তোমার সাথে দেখা

 সেদিন দেখেছিলাম তোমার হাসি মাখা মুখ।

 শুনেছিলাম তোমার কথার গাঁথুনী।

 তারপর অনেকটা পথ তোমার সাথে হাঁটলাম

 ঘুরলাম, কথা বললাম ঘন্টার পর ঘন্টা।

 

 এখন তোমাকে দেখিনা আগের অবয়বে

 যেন শূণ্যতা ঘিরেছে তোমায়,

 এখন তোমার মুখে আর হাসি ফুটেনা।

 বিষন্ন লাগে তোমায় সারাটি ক্ষণ।

 

 আজ সেদিনের কথা ভেবে

 অশ্রু সিক্ত আখি,

 এখন তুমি আর প্রভাভ ফেরীতে আসোনা

 আমিও এখন আজ যাই না প্রভাত ফেরীতে।

 

 আজ যেন সব কিছু এলোমেলো মনে হয়

 যেন কিছুই আগের মতো নেই,

 এখন আর কারো উপর রাগ অভিমান হয়না,

 এখন যেন ভাল লাগা বলতে কিছুই নেই।

 

 সুখেন নিশান উড়ে ছিল হৃদয় আকাশে

 সে সময় দিনগুলো ভাল কেটে ছিল।

 আমার আকাশে সুখের পতাকা শোভা পায়না

 তাই তো সেদিন প্রবল বাতাসে

 ছিড়ে গেছে সেই সুখের নিশানটি।

এখন অনেক রাত,

 কোথাও কেউ জেগে নেই

 আখি যুগলে নেই ঘুমের ছায়া,

 ঘুম যেন অভিমান করেছে

 আজ আর দেখা মিলবে না,

 র্নিঘুমে কেটে যাবে সারাটি রাত।

 কারন শুধু একটাই,

 আজ তুমি পাশে নেই।

 

 তাই বসে পরলাম, ডায়েরীটা নিয়ে

 তোমাকে নিয়ে লিখবো কবিতা

 গান আর ছন্দের কল্পকথা।

 কলমটা একটুও কালি দিচ্ছেনা আমায়,

 ও যেন আজ রেগে আছে ।

 কারন শুধু একটাই

 তুমি পাশে নেই বলে।

 

 দক্ষিনের জানালা খুলে দিয়েছি

 দেখবো চাঁদের মায়বী মুখ।

 চাঁদটা যেন বারবার

 তোমার রুপের কাছে হার মানছে

 আর লজ্জায় লুকাচ্ছে মেঘের আড়ালে।

 

 এ দৃশ্য দেখে,

 আমার হৃদয়ে আনন্দের জোয়ার বইছে

 তবে এই জোয়ারের কোনই মূল্য নেই।

 কারন শুধু একটাই

 আজ তুমি পাশে নেই।

 

তোমাকে নিয়েই ভাবছি

 তোমাকে নিয়ে যে ভাবতে হবে

 তা কিন্তু, প্রথম দেখায় ভাবিনি

 আর এখন…

 আমার ভাবনার আকাশটি দখলে তোমার

 

 আজ আবার অনেক দিন পরে

 তোমায় নিয়ে লিখতে বসলাম

 হাজারটা প্রশ্ন ছুড়ে দিওনা আবার

 কি লিখছো, কি ভাবছো?

 

 তুমি তো বেশ ভাল করেই জান

 এর উত্তর আমি তোমায় দিতে পারবো না

 ভাবতে ভাল লাগে তোমায় নিয়ে

 লিখতে ভাল লাগে তোমায় ভেবে।

 

 তোমার এটা বেশ ভাল করেই জানা

 আমার মনের কথাগুলি আমি কখনোই

 তোমাকে গুছিয়ে বলতে পারিনি

 আর তুমি ই বলো

 

 ভাবনার কথা গুলি যদি নাই বলি

 তবে এতে এমন কিইবা ক্ষতি?

 না বলা এই কথাগুলি

 এ হৃদয়ে বেশ ভাল আছে

 

 আমি তা বলছি না,

 তবে এখনি সুন্দর একথাগুলিকে

 আমি বিবস্ত্র করতে চাইনা।

 

 আর ক’টাদিন সময় দাও

 আমি ঠিকই এইদিন

 না বলা এ কথাগুলি

 তোমার হাতে রেখে হাত

 কোন এক পূর্নিমা রাতে

 তোমার পাশে বসে

 গান বা কবিতার সুরে

 নয়তো বা খোকাদের মতো

 এক দমেই সব শুনিয়ে দিবো।

 

তোমরা কি শুনবে কেউ

 আমার কিছু কথা?

 আমার ভাল-মন্দ লাগা

 কিংবা দুঃখ ব্যথা?

 মাঝে মাঝে নিজেকে

 লাগে বড় একা,

 

 মনের মত বন্ধুর দেখা

 পাবো আমি কোথা?

 চুপচাপ বসে থাকি

 কিছুই লাগে না ভাল,

 অবচেতন মন বলে ওঠে,

 কিছু একটা কর।

 

 কিন্তু কি করবো আমি

 পাই না কোন কাজ,

 কখন যে পার হয়

 সকাল-দুপুর-সাঁঝ!

 একা একা কোন কিছুতেই

 সময় আর না কাটে,

 ইশ একটা কাজ এখন যদি

 থাকতো আমার হাতে!

 

 ভাল কিছু যখন আর

 করার না থাকে,

 উদ্ভট কিছু চিন্তা ভাবনা

 মাথায় চলে আসে।

 

 সেইসব চিন্তা ভাবনার

 আগা মাথা নাই,

 চিন্তার সাগরে কখনো ডুবে

 হাবুডুবু খাই!

 

 মাঝে মাঝে বিরক্ত হয়ে

 বই নিয়ে বসি,

 কি আর পড়বো? এখন তো

 লাগছে সবই বাসি।

 

 কখনো কখনো মনে হয়

 কিছু একটা লেখি,

 কখনো বা জানালা দিয়ে

 দূরে তাকায়ে দেখি।

 

 চোখের দৃষ্টি মাঝে মাঝে

 সুদূরে হারিয়ে যায়,

 মনের গভীর কল্পনা ছেড়ে

 অনন্ত নীলিমায়।

 

 কখনো আমি বন্ধুর কাছে

 লিখতে বসি চিঠি,

 উত্তরের প্রতিক্ষায় থাকে

 আমার নয়ন দিঠি।

 

 চোখের সামনে ভাসে যে

 কত রঙ্গীন স্বপ্ন,

 মনের মাঝে জাগে কত

 হাজারো জটিল প্রশ্ন।

 

 মাঝে মধ্যে লিখে ফেলি

 ছড়া কিংবা কবিতা,

 কখনো পড়তে ভাল লাগে

 রূপকথার গল্প কথিকা।


Next Page

50% LikesVS
50% Dislikes